Photography

Cinematography ::

Post Page Advertisement [Top]

Post Page Advertisement

ইবুক বানানোর দিনগুলো...

 বই পড়ার নেশা থেকে বই শেয়ার করার নেশাটা একসময় ধরে গিয়েছিলো।আজকের গল্পটা আমার জীবনের বইয়ের সাথের সময়টার।

তখন আমি ইন্টারে পড়তাম, আর প্রথম পছন্দ ছিলো হুমায়ুন আহমেদের বইগুলো। তারপরে সেবা প্রকাশনীর মাসুদ রানা। মাঝে মাঝে কাজী নজরুল ইসলামের সবগুলো লেখা পড়তে চাইলেও লাইব্রেরীতে সবসময় যাওয়া হতোনা, পেতামও না। নেটে সেসময় দেখতাম কয়েকটা ওয়েবসাইটে তারা জাফর ইকবাল, হুমায়ুন আহমেদের বইগুলো পিডিএফ করে আপলোড করতো। যখন একবারে অনেকগুলো বই পাওয়া যায়, তখন কে আর লোভ সামলাতে পারে বলুন? তবে সেসময় ইন্টারনেট আজকের মতো এতো সহজ ছিলনা, আর ফোনগুলোও আজকের মতো এতো শক্তিশালী ছিলনা। সাইবার ক্যাফেতে গিয়ে চোখ বুঝে ইবুকগুলো ডাইনলোড করে নিয়ে আসতাম, আর বাড়ি ফিরে পিসিতে মজা মেরে পড়তাম (কারন ছাত্র জীবনে সাইবার ক্যাফের প্রতি ঘন্টার ২৫ টাকাও অনেক বড় ব্যাপার ছিলো আমার কাছে, ডান-বাম করেই না টাকাগুলো ম্যানেজ হতো :p )। মুর্চ্ছনা নামের একটা ওয়েবসাইট সবচেয়ে বেশী এগিয়ে ছিলো বই আপলোডের ব্যাপারে, ওরা অবশ্য মিউজিকও আপলোড করতো। আজকে সাইটটা নেই, মিস করি খুবই।

যাহোক, সাইবার ক্যাফেতে গিয়ে একটা ব্যাপার খুব খেয়াল করলাম, কাজী নজরুণ ইসলাম সহ বাংলাদেশের অন্যান্য লেখকদের বইগুলো পাওয়া যেতোনা, অথচ, ওপার বাংলার প্রায় সবারই বই পাওয়া যেতো ইবুক হিসেবে, তাও আবার কম্পোজ ভার্সনেই। আর মুর্চ্ছনা অধিকাংশ বই করতো স্কান করে, তাও বেশীরভাগই ইকবাল, হুমায়ুন আহমেদের বইগুলো, এদেশের স্বনামধন্য লেখকদের বই নেটে পাওয়াই যেতোনা।বিষয়টা অদ্ভুত লাগতো।

অবশেষে সিদ্ধান্ত নিলাম যে, নিজেই নিজের দেশের লেখকদের বইগুলো অনলাইনে নিয়ে আসবো। কিন্তু সেটা করতে হলেও আমার দরকার ওয়েবসাইট, স্কানার। ওয়েবসাইট বানাতে যে খরচ, তা আমার দ্বারা সম্ভব ছিলনা সে মুহুর্তে, তাই নিজেই ক্যাফেতে গিয়ে চোখ বুঝে স্টাটিক ওয়েবসাইট বানানোর টিউটোরিয়াল নামিয়ে বাসায় প্রাকটিশ করে ওয়েবসাইট বানানো শিখি। প্রিয় ভাই মুহিব্বুরের সাহায্যে সম্ভবত ১০০০/- দিয়ে প্রথম ডোমেইন ও হোস্টিং কিনি, 09-11-2008 এ launch হয় ওয়েবসাইটটি, banglainternet.com নামে। নামটাও পছন্দ করে দিয়েছিলো মুহিব্বুরই J

প্রথম প্রথম হাতে কম্পোজ করে করে ছোট ছোট পিডিএফ বানাতাম, কিন্তু এতে প্রচুর কষ্ট, আর নেটে বইয়ের অভাব বিশাল। প্রিয় বন্ধু সুমনকে এ ব্যাপারে জানালে ও একটা ক্লায়েন্ট জোগাড় করে দিলো। তাদের কাজ করে কিছু লাভ হলো, সাথে আরো কিছু টাকা ধার দিলো সুমন যাতে স্কানারটা কিনতে পারি।

অবশেষে স্কানারটা কেনা হলো, আর শুরু হলো ধুমিয়ে বই স্কানের পালা। প্রতিটা পাতা  গড়ে ৩০-৩৫ সেকেন্ড নিতো স্কান হতে, এভাবে একটা বইয়ের সবগুলো পাতা অধীর ধৈর্য্যর সাথে স্কান করতাম। স্কান শেষে সেগুলো আবার ফটোশপে নিয়ে বর্ডারগুলো মুছে ফ্রেশ তরতে হতো, তাতেও অনেক সময় লাগতো। অবশেষে যখন প্রতিটা পাতা ফ্রেশ হতো এডিটের পর, তখন adobe pdf creator দিয়ে সবগুলো পাতা merge করে একটি ইবুক তৈরী হতো।আমার তরৈী যতগুলো পিডিএফ পাবেন, তার প্রতিটিতেই অনেকগুলো ঘন্টার কষ্ট রয়েছে, আর রয়েছে ভালবাসা।

প্রথম দিকে সাইটটায় লোড/ ডাইনলোড কম হলেও কয়েকমাস পর বেশ বড় ধরনের চাপ পড়তে থাকলো, আমার ১০০০/- হোস্টিং প্যাকেজে সেটা সামাল দেবার ক্ষমতা ছিলোনা, ফলে মাঝে মাঝে সাইট অফ হতো। আমার সামর্থের কথা ভেবে আবারো প্রিয় ছোট ভাই মুহিব্বুর এগিয়ে এলো, ওর কাছে থাকা vps হোষ্টিং থেকে সাইটটার সাপোর্ট দিলো, ফলে সাইটটার লোড ক্যাপাসিটি অনেকগুন বাড়লো, কিন্তু এর খরচও অনেকগুন বেশী ছিলো, অথচ ও সেই খরচটা নিতোনা, নামে মাত্র একটা খরচ ধরিয়ে দিতাম ওকে।

১-২ বছরের মাথায় সাইটে ডাউনলোডের লোড অনেক অনেক বেড়ে গেলো, এমনও হতো প্রতিদিন ৫০-৬০ গিগাবাইটও ইবুক ডাউনলোড হতো, vps হোস্টিং এ  না হওয়ায় এবার dedicated server এর সাপোর্ট দিলো মুহিব্বুর, যা আমার সামর্থের বাইরে ছিলো পুরোটাই। বলা বাহুল্য, বিশাল বড় মাপের ওয়েবসাইটগুলো ছাড়া dedicated server লাগেনা, অথচ সেইটারও সাপোর্ট মুহিব্বুর দিয়েছে।

আমার সময়ে ছেলেপেলে যখন প্রেম নিয়ে ব্যস্ত, সেসময়ে আমি পাগলের মতো শুধু দিন-রাত বই স্কান করে কাটিয়েছি, বইয়ের প্রেমে।

অবশেষে, পারিবারিক, আর্থিক নানারকম সমস্যায় পড়ে সম্ভবত ২০১৮ এর দিকে ওয়েবসাইটটা ছেড়ে দেই। কিন্তু, বইপ্রেমীদের কিভাবে বঞ্চিত রাখা যায়? তাই বিকল্প আরেকটা ডোমেইনে সবগুলো বই ট্রান্সফার করে দেই, banglaebooks.download এখানে। এটিতে আর আগের সাইটের মতো অতোটা যত্ন করা হয়নি, শুধুমাত্র বইগুলোর existence ধরে রাখার জন্য অনলাইন করে রাখা। আসলে বিভিন্ন সমস্যার কারনে বই স্কানের কাজ থেকে নরে গেলেও যদি কোনোদিন উপরওয়ালা স্বচ্ছল করে দেন, তাহলে আবার ফিরে আসবো book sharing এর কাজে। আবারো বানাবো ebook , সবাইকে পড়াবো।

Bottom Ad [Post Page]

| Designed by Colorlib